Health

১০টি মোটা হওয়ার সহজ উপায় (Mota Howar Sohoj Upay)

মোটা হওয়ার সহজ উপায় । mota howar sohoj upay. মোটা হওয়ার 10 টি উপায়। কি অবস্থা সবার সবাই কেমন আছেন। আজকের এই পোস্টটিতে আপনাদের সাথে শেয়ার করবো মোটা হওয়ার সবচাইতে সহজ উপায়। আমরা অনেকেই চিকন এজন্য অনেকের কথা শুনতে হয়। মাঝে মাঝে মনে হয় আমরা যদি মোটা হতে পারতাম বা একটি সুস্থ দেহের অধিকারী হতে পারতাম তাহলে না কতই ভালো হতো। অনেক চেষ্টা করেও মোটা হতে পারতেছি না। বুকে অনেক কষ্ট রাতে টেনসনে ঘুম আসেনা।

এই পোস্টটি পড়ার পরে আপনাকে আর কোন টেনশন করতে হবে না। কারণ এই পোস্টটিতে আমরা শেয়ার করেছি একদম ঘরোয়া পদ্ধতিতে মোটা হবার 10 টি সহজ উপায়। এই পোস্টটি শুরু করার আগে আপনাদের সাথে কিছু কথা শেয়ার করতে চায় যে কথাগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই মনোযোগ সহকারে এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

আমরা অনেকেই মোটা হওয়ার জন্য কি না করি। কেউ কেউ আছেন মোটা হওয়ার জন্য অনেকেই অনেক ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন এবং তারা বিভিন্ন ধরনের ওষুধ লিখে দেন। আসলে এটা হচ্ছে সবচাইতে বড় একটি ভুল। আপনি ওষুধ সেবন করে স্থায়ীভাবে মোটা হতে পারবেন না । আর এই ওষুধগুলো তে অনেক ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে যা দেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।। চেষ্টা করে মোটা হতে ইনশাল্লাহ পারবেন।। আমরা এই পোষ্টের নিচে এমন দশটি টিপস শেয়ার করেছি যেগুলো আপনাকে নিয়মিত চর্চার ফলে মোটা হতে সাহায্য করবে।

চলুন দেখা যাক মোটা হওয়ার 10 টি সমূহ।

মোটা হওয়ার 10 টি সহজ উপায়

  • বারবার খাবার গ্রহণ

আমরা সাধারণত দিনে তিন বেলা খাবার খেয়ে থাকি। আসলে আমাদের উচিত মোটা হওয়ার জন্য প্রতিদিন ঘন্টা অন্তর অন্তর অল্প করে কিছু খাওয়া। এবং এই খাওয়া গুলা অবশ্যই পুষ্টিকর হতে হবে। টক দই ফল ছানা বা অন্যান্য যে ধরনের পুষ্টিকর খাবার আছে এগুলো আমরা অন্তর অন্তর খেতে পারি। এগুলো আমাদের এক্সট্রা পুষ্টি জোগাতে সহায়তা করবে।

  • বেশি ক্যালরির খাবার গ্রহণ

মোটা হওয়ার জন্য এই কারণে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। অনেকে ক্যালরি যুক্ত খাবার গ্রহণ করতে চান না কিন্তু মোটা হওয়ার জন্য এখানে যুক্ত খাবার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি শুধু দ্রুত সময়ে ওজন বৃদ্ধি করতে চান তাহলে দিনে মিনিমাম 600 থেকে 700 ক্যালরি খাবার বেশি গ্রহণ করতে হবে। আর যদি আস্তে আস্তে করতে চান তাহলে প্রতিদিন 400 থেকে 500 ক্যালোরি খাবার বেশি গ্রহণ করলেই আপনার জন্য যথেষ্ট। বৃদ্ধি পাবে।

  • প্রোটিনযুক্ত খাবার গ্রহণ

ওজন বাড়ানোর জন্য ক্যালরি যথেষ্ট না। মাত্রাতিরিক্ত ক্যালরি কখনোই কারো জন্য ভালো না। প্রোটিনযুক্ত খাবার গ্রহণ করতে হবে। আপনি প্রতি খাবারের তালিকায় প্রোটিন জাতীয় খাবার যেমন ডিম দুধ ডাল অথবা অন্যান্য খাবার গুলো অবশ্যই রাখবেন।

  • কিসমিস ও খেজুর

মোটা হওয়ার জন্য অনেক ধরনের খাবার হয়েছে এদের মধ্যে খুবই কার্যকরী হচ্ছে কিসমিস খেজুর। কিসমিস ও খেজুর এর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি। আপনি সকালে এবং রাতে ঘুমানোর আগে নিয়মিত কিসমিস ও খেজুর খান। রাতে একটি ক্লাসে 30 থেকে 40 টি কিসমিস ডিজে রাখবেন এবং সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর সেই কিসমিস খালি পেটে গ্রহণ করবেন। আপনি চাইলে কিসমিসের ভেজানো পানি খেতে পারেন এটি অনেক স্বাস্থ্যকর। এবং রাতে ঘুমানোর আগে 7 থেকে 8 টি খেজুর ভালভাবে ধুয়ে খেয়ে ঘুমাবেন। এভাবে নিয়মিত এক মাস আপনি সকালে এবং রাতে খেজুর খেয়ে ঘুমাবে আশা করা যায় আপনার ওজন বেড়ে যাবে। এ খাবার দুটি শুধু আপনার শরীরের ওজন বৃদ্ধির জন্য নয় শক্তি বৃদ্ধি করবে।

  • খাবার কমিয়ে দেওয়া

যেসব খাবার ওজন কমাতে সাহায্য করে যেসব খাবার অবশ্যই খাবেন না। যে খাবারগুলো আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করে সে খাবারগুলো থেকে অবশ্যই দূরে থাকবেন। যেমন অতিরিক্ত পরিমাণে পানি আপেল ভেজানো বাদাম বা আরো অন্যান্য যে খাবারগুলো আছে। এই খাবারগুলো অতিরিক্ত পরিমাণে খাবেন না এবং একেবারে বন্ধ করে অধিক হবে না শুধুমাত্র খাবার পরিমাণ টা একটু কমিয়ে দিবেন।

  • নিয়মিত ব্যায়াম

আসলে আমরা অনেকেই ভাবি ব্যায়াম করলে আমাদের শরীরের ক্যালরি ক্ষয় হয়ে যায় এজন্য আমরা অনেক সময়। চিকন হয়ে যেতে পারি। এ ধারণাটি একদম ভুল। কেননা ব্যায়াম করলে শরীরের প্রত্যেকটা অঙ্গ পতঙ্গ সজাগ হয় এবং ফিটনেস তৈরি করতে সাহায্য করে আপনি রেগুলার ব্যায়াম করুন দেখবেন আপনার শরীর সুস্থ থাকবে এবং এটি ওজন বাড়াতে খুবই সাহায্য করবে। তাই প্রতিদিন নিয়মিত ভাবে ব্যায়াম করুন।

  • টেনশন মুক্ত থাকুন

প্রত্যেকটি মানুষের কম বেশি টেনশন রয়েছে। অতিরিক্ত টেনশন মানুষকে দুর্বল করে ফেলে। আপনি টেনশন ফ্রি না হতে পারলে আপনি কখনোই মোটা হতে পারবেন না অতিরিক্ত টেনশন মানুষের যে কতটা ক্ষতিকর তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই সর্বদা চেষ্টা করুন অতিরিক্ত টেনশন হতে দূরে।

  • নিয়মিত ঘুম

নিয়মিত ঘুম স্বাস্থ্যের জন্য খুবই একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আপনি অনেক পরিমাণে পুষ্টিকর বা ক্যালরিযুক্ত খাবার খেলেই আপনার যদি হতে হবে তা নয় আপনি যদি নিয়মিত ঘুম না পারেন তাহলে আপনি কখনোই মোটা হতে পারবেন না। তাই আপনাকে প্রতিদিন নিয়মিত ঘুম পারতে হবে। দৈনিক সর্বনিম্ন 8 ঘণ্টা ঘুমাতে হবে। আপনি প্রয়োজনে একটি রুটিন অনুযায়ী আপনার লাইফ স্টাইল শুরু করতে পারেন। যেমন আমাদের সাজেশন আপনি যদি মুসলমান হন তাহলে খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠবেন এবং ফজরের নামাজ আদায় করবেন ফজরের নামাজ আদায় করার পরে কখনোই করবেন না এটি খুবই ক্ষতিকর। না ঘুমিয়ে আপনি হালকা খাবার গ্রহণ করে কোরআন পড়ুন এবং অন্যান্য ইবাদত শুরু করে দিন। এবাদত করা শেষ হলে আপনি আপনার নিয়মিত কাজে লেগে পড়ুন অথবা ব্যায়াম এর জন্য বেরিয়ে যান। এভাবে নিয়মিত একমাস আপনি যদি চর্চা করে করেন তাহলে অবশ্যই আপনার ওজন বৃদ্ধি পাবে। মনে রাখবেন অতিরিক্ত ঘুম কখনোই ভালো না।

আপনি যদি উপরে উল্লেখিত রুলস গুলো ফলো করেন আপনি সহজেই মোটা হতে পারবেন।

এই ছিল আমাদের সবচাইতে দশটি ওজন বাড়ানোর টিপস। আশা রাখছি আপনি যদি উপরে উল্লেখিত টিপসগুলো সঠিকভাবে চর্চা করেন তাহলে আপনার ওজন খুবই অল্প দিনে বেড়ে যাবে। আর হ্যাঁ মনে রাখবেন অতিরিক্ত ওজন দেয়ার জন্য কখনোই ভালো না তাই ফিট থাকতে অবশ্যই প্রতিদিন ব্যায়াম করুন।

ওজন বাড়ানোর সবচেয়ে সহজ উপায় এর পোস্টে যদি আপনার ভালো লেগে থাকে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। এবং এ ধরনের অনেক নতুন নতুন টিপস পেতে সাথেই থাকুন।

iTech

iTech is not a person. It's an online portal. Where provide valuable information. And every day updating Helpful content. Explore the new world with iTech.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button